এইচএসসিতে পাশের হার ও জিপিএ-৫ কমেছে

এইচএসসিতে পাশের হার ও জিপিএ-৫ কমেছে

এইচএসসিতে পাশের হার ও জিপিএ-৫ কমেছেচলতি বছর এইচএসসিতে পাশের হার ও জিপিএ-৫ কমেছে। দেশের ১০টি শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। চলতি বছর গড় পাসের হার ৬৮ দশমিক ৯১ শতাংশ। সারাদেশে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৭ হাজার ৭২৬ জন। পাশের হার গতবারের চেয়ে ৫ দশমিক ৭৯ শতাংশ কম। গত বছর এ পরীক্ষায় পাসের হার ছিল ৭৪ দশমিক ৭০ শতাংশ। গত বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৫৮,২৭৬ জন। অর্থাৎ গতবারের চেয়ে জিপিএ-৫ কমেছে ২০,৫৫০ জন।

আজ সকাল ১০টায় রাজধানীর তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফলাফল হস্তান্তর করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

সিলেট শিক্ষাবোর্ডে পাস করেছেন ৭২ শতাংশ পরীক্ষার্থী। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৭০০ জন।

অন্যদিকে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে এবার পাসের হার সর্বনিম্ন ৪৯ দশমিক ৫২ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৬৭৮ জন।

এছাড়া রাজশাহী বোর্ডে এবার পাসের হার ৭১ দশমিক ৩০ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫ হাজার ২৯৪ জন।

বরিশাল বোর্ডে পাসের হার ৭০ দশমিক ২৮ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫ হাজার ৮১৫ জন।

যশোর বোর্ডে পাসের হার ৭০ দশমিক ০২ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ হাজার ৪৪৭ জন।

ঢাকা বোর্ডে পাসের হার ৬৯ দশমিক ৭৪ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৮ হাজার ৯৩০ জন।

দিনাজপুর বোর্ডে পাসের হার ৬৫ দশমিক ৪৪ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ হাজার ৯৮৭ জন।

চট্টগ্রাম বোর্ডে পাসের হার ৬১ দশমিক ০৯ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ হাজার ৩৯১ জন।

মাদ্রাসা বোর্ডে পাসের হার ৭৭ দশমিক ২০ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ হাজার ৮১৫ জন।

কারিগরি বোর্ডে পাসের হার ৮১ দশমিক ৩৩ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ হাজার ৬৬৯ জন।

শিক্ষার্থীরা দুপুর ১টার পর থেকে শিক্ষা বোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট, যে কোনো মোবাইলের এসএমএসের মাধ্যমে ও নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে ফল জানতে পারবে।

পাশের হারে মেয়েরা এগিয়ে
এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলে এবারও ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। এবার মেয়েদের গড় পাসের হার ৭০.৪৩ শতাংশ এবং ছেলেদের ৬৮.৬১ শতাংশ।

প্রকাশিত ফলে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। তবে গত বছরের তুলনায় পাসের হার ও জিপিএ-৫ সংখ্যা কমেছে। এ বছর মোট পাসের সংখ্যা ৬ লাখ ৪৪ হাজার ৯৪২ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন মোট ৩৭ হাজার ৭২৬ শিক্ষার্থী। গত বছর পাসের হার ছিল ৭৪ দশমিক ৭০ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৫৮ হাজার ২৭৬ জন।

পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু ২৪ জুলাই
শিক্ষার্থীদের ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু হবে ২৪ জুলাই থেকে। চলবে ৩০ জুলাই পর্যন্ত। এটি গ্রহণ করবে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ড। তবে শুধু মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক থেকে এ আবেদন করা যাবে।

ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করতে RSC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে বিষয় কোড লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফি বাবদ কত টাকা কেটে নেওয়া হবে, তা জানিয়ে একটি পিন নম্বর দেওয়া হবে।

আবেদনে সম্মত থাকলে RSC লিখে স্পেস দিয়ে YES লিখে স্পেস দিয়ে পিন নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে যোগাযোগের জন্য একটি মোবাইল ফোন নম্বর লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে।

এক্ষেত্রে প্রতিটি বিষয় ও প্রতিটি পত্রের জন্য ১৫০ টাকা হারে চার্জ কাটা হবে। যেসব বিষয়ের দুটি পত্র (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) রয়েছে সেসব বিষয়ের দুটি পত্রের জন্য মোট ৩০০ টাকা ফি কাটা হবে। একই এসএমএসে একাধিক বিষয়ের জন্য আবেদন করা যাবে,তবে বিষয় কোড পর্যায়ক্রমে ‘কমা’ দিয়ে লিখতে হবে।

৭২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কেউই পাস করেনি
গতবারের চেয়ে এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় শতভাগ শিক্ষার্থী পাসের প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৩১৬টি কমেছে। আর কোনো শিক্ষার্থীই পাশ করেত পারেনি এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বেড়েছে ৪৭টি।

এবার ৭২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষার্থীই এইচএসসি পাস করতে পারেনি। গত বছর এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ২৫টি।

বিদেশী কেন্দ্রে পাসের হার ৯৪.২১ শতাংশ
এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় দেশের বাইরের সাতটি কেন্দ্র থেকে ২৫৯ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ২৪৪ জন পাস করেছে। পাসের হার ৯৪ দশমিক ২১ শতাংশ।
৪৬ জন জিপিএ -৫ পেয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি আজ রোববার দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনের এই ফলাফল প্রকাশ করেন।

কাতারের দোহায় অবস্থিত বাংলাদেশ মাসহুর উল-হক মেমোরিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ হতে ৬৮ জন, আবুধাবির শেখ খলিফা বিন জায়েদ বাংলাদেশ ইসলামিয়া স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ২৪ জন, বাংলাদেশ ইসলামিয়া স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ১৬ জন সউদী আরবের জেদ্দা ও রিয়াদ অবস্থিত বাংলাদেশ ইনটারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে যথাক্রমে ৬৫ ও ৬১ জন শিক্ষার্থী, বাংলাদেশ স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ৪ জন এবং ত্রিপলির বাংলাদেশ কমিউনিটি স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ৬ জন শিক্ষার্থী পাস করেছে।

‘খাতা সঠিক মূল্যায়নে পাসের হার কমেছে’
এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার খাতা ভালোভাবে মূল্যায়ন করার কারণেই পাসের হার গতবারের তুলনায় এবছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার তুলনামূলক কম। জানালেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

রোববার সকালে প্রধানমন্ত্রীর হাতে ফলের অনুলিপি তুলে দেয়ার পর শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ একথা জানান।

নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, গতবারের তুলনায় এবার ৫ দশমিক ৭৯ শতাংশ কম পাস করেছে। এবার পাস কম হওয়ায় আমরা বিস্মিত হইনি। পরীক্ষার খাতা ভালোভাবে মূল্যায়ন করার কারণেই এ ফল হয়েছে। এসএসসি পরীক্ষায়ও একই ঘটনা ঘটেছে।

তিনি বলেন, আমরা একটি কমিটি করে দিয়েছি, যার অধীনে পরীক্ষার খাতাগুলো বিশেষভাবে মূল্যায়ন করা হয়ে থাকে। এখানে ঢালাওভাবে খাতা মূল্যায়নের কোনো সুযোগ নেই। প্রথমে আমরা প্রধান পরীক্ষককে প্রশিক্ষণ দিয়েছি। পরে তিনি অন্যদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। খাতা দেখার বিশেষ মূল্যায়নের কারণেই ফলের এই পার্থক্য হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *