এইচএসসিতে পরীক্ষার্থী কমেছে ৬৭,৪৯০ জন

দেশের ১০টি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেবে ১০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৪ জন শিক্ষার্থী।

দেশের ১০টি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেবে ১০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৪ জন শিক্ষার্থী।দেশের ১০টি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেবে ১০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৪ জন শিক্ষার্থী। গত বছর এ পরীক্ষায় ১১ লাখ ৪১ হাজার ৩৭৪ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছিলেন। এই হিসাবে এবার পরীক্ষার্থী কমেছে ৬৭ হাজার ৪৯০ জন।

সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক ব্রিফিংয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, ১০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৪ জনের মধ্যে ৮টি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এইচএসসিতে পরীক্ষায় অংশ নেবে ৮ লাখ ৮৬ হাজার ৯৩৩ শিক্ষার্থী। বাকিরা বিশেষ শিক্ষাবোর্ডের অধীনে সমমানের পরীক্ষা দেবে।

সূচি অনুযায়ী, আগামী ১ এপ্রিল থেকে ১১ জুন পর্যন্ত এইচএসসি ও সমমানে তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা হবে। ব্যবহারিক পরীক্ষা হবে ১৩ জুন থেকে ২২ জুন।

শিক্ষামন্ত্রী আবারো দৃঢ়ভাবে বলেছেন বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের হরতাল-অবরোধ কর্মসূচির মধ্যেই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, “যত বাধা বিপত্তিই আসুক না কেন, সব অতিক্রম করে যথাসময়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে নির্ধারিত সময়েই।”

এদিকে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে মোট ৫দিনের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পেছানোর অনুরোধ জানানো হয়। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এইচএসসি পরীক্ষার পূর্ব নির্ধারিত ২৬, ২৭, ২৮ ও ২৯ এপ্রিলের পরীক্ষা পেছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথাও জানান।

ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন সকল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্ট বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এবার বাংলা প্রথম পত্র, রসায়ন, পৌরনীতি, ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ, জীববিজ্ঞান, পদার্থ বিজ্ঞান, ইতিহাস, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, হিসাব বিজ্ঞান, ব্যবসায় উদ্যোগ ও ব্যবহারিক ব্যবস্থাপনা, সমাজ বিজ্ঞান এবং কম্পিউটার শিক্ষা প্রথম ও দ্বিতীয় পত্রসহ মোট ২৫টি বিষয়ে পরীক্ষা হবে সৃজনশীল প্রশ্নে।

এইচএসসিতে ২০১২ সালে বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা সৃজনশীল প্রশ্নে হয়।

আর ২০১৩ সালে বাংলা প্রথম পত্র, রসায়ন প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র, পৌরনীতি প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র, ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ প্রথম ও দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা সৃজনশীল পদ্ধতিতে হয়েছিল।

গত বছরও ২৫টি বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা হয়েছিল।

এবারও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী, সেরিব্রাল পালসিজনিত প্রতিবন্ধী এবং হাত নেই এমন প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থীরা শ্রুতিলেখক নিয়ে পরীক্ষা দিতে পারবেন। এক্ষেত্রে দশম শ্রেণিতে অধ্যয়নরতদের শ্রুতিলেখক হিসাবে নেওয়া যাবে বলে জানান মন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *