ইংল্যান্ডকে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা অস্ট্রেলিয়ার

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ডকে ১১১ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা করেছে অস্ট্রেলিয়া।

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ডকে ১১১ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা করেছে অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ডকে ১১১ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা করেছে অস্ট্রেলিয়া।

একাদশ বিশ্বকাপে প্রথম সেঞ্চুরি পেয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ। শনিবার উদ্বোধনী দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে এই সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। তার সেঞ্চুরির সুবাদে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করেছে অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ডকে ১১১ রানে হারিয়েছে তারা। দল হারলেও ব্যক্তিগত নৈপূন্যে এগিয়ে থাকবেন ইংল্যান্ডের বোলার স্টিভেন ফিন। কারণ প্রতিযোগিতায় হ্যাটট্রিকসহ ৫টি উইকেট নিয়েছেন ফিন।

মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টস জিতে শুরুতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ইংলিশ অধিনায়ক ইয়ন মরগান। উদ্বোধনী জুটি কিছুটা প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করেছে। তবে দলীয় ৫৭ রানের জুটিতে ভাঙন ধরেছে। এরপর দুই ইংলিশ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড ও ক্রিস ওয়েকসের গতিতে কিছুটা বিধ্বস্ত হতে থাকে অস্ট্রেলিয়া।

৮ম ওভারে পরপর দুই বলে টু ডব্লিউ খ্যাত ডেভিড ওয়ার্নার ও শেন ওয়াটসনকে ফিরিয়ে দিয়েছেন ব্রড। স্বল্প সময়ের ব্যবধানে স্টিভেন স্মিথকেও ফিরিয়েছেন ওয়েকস। ওয়ার্নার ২২ রান করলেও ওয়াটসন রানের খাতা খুলতে পারেননি। আর ৫ রান করেন স্মিথ।

এতে শুরুতে কিছুটা চাপে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। সেই চাপ কাটাতে ফিঞ্চের সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন অধিনায়ক জর্জ বেইলি। এই দুজনের ১৪৬ রানের জুটিতে চাপ কাটিয়ে ওঠে অস্ট্রেলিয়া। যদিও এরপর ফিঞ্চ ও বেইলি খুব কাছাকাছি সময়ে সাজঘরে ফিরেছেন। এর আগেই ১৩৫ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন ফিঞ্চ। ১২৮ বলে ১২টি চার ও ৩টি ছক্কার মারে ইনিংসটি সাজিয়ে রান আউট হয়েছেন তিনি। আর বেইলি করেছেন ৫৫ রান।

এরপর স্টিভেন ফিনের গতি আবারও ভুগাতে থাকে অস্ট্রেলিয়াকে। তবে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ব্যাটে বাকি পথ ভালভাবেই পাড়ি দিয়েছে স্বাগতিকরা। যদিও একেবারে শেষ দিকে ৪০ বলে ১১টি চারের মারে ৬৬ রান করে আউট হয়েছেন ম্যাক্সওয়েল। এ ছাড়া ব্রাড হাডিন ৩১ ও মিচেল মার্শ ২৩ রান করেছেন।

ইংলিশ বোলারদের মধ্যে ৭১ রানের খরচায় একাই ৫টি উইকেট তুলে নিয়েছেন স্টিভেন ফিন। এ ছাড়া স্টুয়ার্ট ব্রড ২টি ও ক্রিস ওয়েকস একটি উইকেট নিয়েছেন।

জয়ের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে অস্ট্রেলিয়ার পেস গতি ঝড়ে সুবিধা করতে পারেনি ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। দলীয় ৯২ রানের মধ্যে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছে তারা। অবশ্য সপ্তম উইকেট জুটিতে প্রতিরোধ গড়েছিলেন ক্রিস ওয়াকেস ও জেমস টেলর। তবে ব্যক্তিগত ৩৭ রানে ওয়াকেস বিদায় নিলে সে প্রচেষ্টাও বৃথা গেছে ইংল্যান্ডের।

সতীর্থরা একে একে বিদায় নিলেও এক প্রান্ত আগলে রেখে খেলেছেন জেমস টেলর। শেষ অবধি ৯৮ রানের অপরাজিত একটি ইনিংস খেলেছেন তিনি। এ জন্য গুটিয়ে যাওয়ার আগে ২৩১ রান তুলতে সমর্থ হয়েছিল ইংল্যান্ড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

অস্ট্রেলিয়া : ৩৪২/৯ (ফিঞ্চ ১৩৫, ম্যাক্সওয়েল ৬৬, বেইলি ৫৫, হাডিন ৩১; ফিন ৫/৭১)

ইংল্যান্ড : ২৩১/১০ (টেলর ৯৮*, ওয়াকেস ৩৭, বেল ৩৬; মিচেল মার্শ ৫/৩৩)

ফল : অস্ট্রেলিয়া ১১১ রানে জয়ী

ম্যাচসেরা : অ্যারন ফিঞ্চ (অস্ট্রেলিয়া)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *