ইরানে পার্লামেন্টে হামলা, নিহত ১২

ইরানে পার্লামেন্টে হামলা, নিহত ১২

ইরানে পার্লামেন্টে হামলা, নিহত ১২ইরানের রাজধানী তেহরানে পার্লামেন্ট ও সাবেক সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনির সমাধিতে বন্দুকধারী ও আত্মঘাতী বোমা হামলাকারীদের হামলায় ১২ জন নিহত ও ৩৯ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় ছয়টি গ্রেনেডসহ এক নারী জঙ্গিকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ।

স্থানীয় সময় বুধবার এই হামলা চালানো হয় বলে দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। সশস্ত্র বন্দুকধারী পার্লামেন্ট ভবনে হামলা চালায়। অন্যদিকে রুহুল্লাহ খোমেনির বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা হামলায় চালায় এক নারী।

আইআরআইবির খবরে বলা হয়, পার্লামেন্ট ভবনে হামলাকারীদের একজন চতুর্থ তলায় নিজেকে বোমায় উড়িয়ে দেয়।

দেশটির পার্লামেন্টের আইনপ্রণেতা ইলিয়াস হজরতি রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে বলেন, তিন বন্দুকধারী পার্লামেন্ট ভবনে হামলা চালায়, যাদের একজনের হাতে পিস্তল ও দুজনের কাছে একে-৪৭ রাইফেল ছিল।

আইএসএনএ জানায়, পার্লামেন্টে সব দরজা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ভবনের প্রবেশের সব পথ বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।

ঘটনাস্থলে থাকা আলজাজিরার প্রতিনিধি অ্যান্ড্রু সিমন্স বলেন, ‘হামলার পর রাজধানীর রাস্তায় এই মুহূর্তে একধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছে। পার্লামেন্টের ভেতর শোরগোল শোনা গেছে।’

‘হামলাগুলো সমন্বিতভাবে হওয়ার আশঙ্কা অনেক বেশি। একটা হামলার কয়েক মিনিটের মধ্যেই আরেক হামলা কাকতালীয় হওয়ার কথা নয়।’

দায় স্বীকার আইএসের
ইরানের রাজধানী তেহরানে পার্লামেন্ট ভবন ও ইমাম খোমেনীর মাজারে হামলার দায় স্বীকার করেছে উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস। ওই গোষ্ঠীর মুখপত্র ‘আমাক’-এর বরাত দিয়ে ফরাসি বার্তা সংস্থা এ খবর দিয়েছে।

বুধবার অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা দশর্ণাথীর বেশে সংসদ ভবনে প্রবেশ করে। এ সময় সেখানকার নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়। এর ফলে বেশ কয়েক জন হতাহত হয়েছে।

এছাড়া, তেহরানের দক্ষিণে অবস্থিত ইমাম খোমেনীর মাজারে চার সন্ত্রাসী একযোগে হামলা চালায়। এর ফলে মাজারের একজন সেবক নিহত ও চারজন আহত হয়েছে। নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ চলাকালে একজন সন্ত্রাসী আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায় এবং ঘটনাস্থলেই মারা যায়। নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়েছে অপর একজন সন্ত্রাসী। তৃতীয় সন্ত্রাসী আহত অবস্থায় আটক হয়েছে।

ইরানের গোয়েন্দা মন্ত্রণালয় ঘোষণা করেছে, তেহরান শহরে সন্ত্রাসীরা কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে হামলার চেষ্টা চালিয়েছে। এর মধ্যে হামলার পরিকল্পনাকারী একটি টিমের সদস্যদেরকে আটক করা হয়েছে। সংসদ ভবন ও মাজার এলাকার নিরাপত্তা পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে তেহরান প্রদেশের গভর্নর হোসেন হাশেমি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *