টুইটারকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পেছনে ফেলেছে ইনস্টাগ্রাম

টুইটারকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পেছনে ফেলেছে ইনস্টাগ্রাম। নতুন এক ঘোষণায় এ তথ্য দিয়েছে ইনস্টাগ্রাম কর্তৃপক্ষ।

টুইটারকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পেছনে ফেলেছে ইনস্টাগ্রাম। নতুন এক ঘোষণায় এ তথ্য দিয়েছে ইনস্টাগ্রাম কর্তৃপক্ষ।ছবি ও ভিডিও শেয়ারিংয়ের সামাজিক যোগাযোগ অ্যাপ ইনস্টাগ্রামের সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৩০ কোটি ছাড়িয়েছে। অন্যদিকে, বিশ্বে টুইটারের ২৮ কোটি ৪০ লাখ সক্রিয় ব্যবহারকারী রয়েছেন।

ফলে, সুস্পষ্টভাবেই টুইটারকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পেছনে ফেলেছে ইনস্টাগ্রাম। নতুন এক ঘোষণায় এ তথ্য দিয়েছে ইনস্টাগ্রাম কর্তৃপক্ষ।

ইনস্টাগ্রামের নির্বাহী পরিচালক কেভিন সিস্ট্রোম এ মাইলফলককে ‘রোমাঞ্চকর’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন এবং বলেছেন প্রতিষ্ঠানটি ‘বিকশিত হতে থাকবে’। তিনি বলেছেন,‘বিশ্বকে পরিবর্তনে’র ক্ষমতা রয়েছে ইনস্টাগ্রামের। অন্যদিকে, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে জনপ্রিয়তায় সর্বাগ্রে ও সব প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঊর্ধ্বে থাকা ফেসবুকের সক্রিয় ব্যবহারকারীর মোট সংখ্যা ১৩৫ কোটি।

২০১২ সালে ইনস্টাগ্রাম কিনে নেয় ফেসবুক। ২০১০ সালের অক্টোবরে কেভিন সিস্ট্রোম ও মাইক ক্রিগারের যৌথ প্রচেষ্টায় গড়ে ওঠে ইনস্টাগ্রাম এবং দ্রুত সারা বিশ্বে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে মাসে ১০ কোটি সক্রিয় ব্যবহারকারীর মাইলফলক স্পর্শ করে ইনস্টাগ্রাম।

ফেসবুকের সঙ্গে যুক্ত হওয়া ইনস্টাগ্রামের সাফল্যগাঁথারই একটি অংশ। যদিও ব্যবহারকারীদের কেউ কেউ ইনস্টাগ্রামের বিজ্ঞাপন নীতি নিয়ে অভিযোগ তুলেছিলেন। কিন্তু, প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, ইনস্টাগ্রামের বিকাশ ও বেড়ে চলা আকারের জন্য সেটা অপরিহার্য। ইনস্টাগ্রামকে আরও আকর্ষণীয় ফিচারসমৃদ্ধ করে উপস্থাপনের লক্ষ্যে নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *