স্বচ্ছ ও বিশ্বাসযোগ্য সিটি নির্বাচনের আহ্বান জাতিসংঘের

বাংলাদেশে একটি স্বচ্ছ, অংশগ্রহণমূলক ও বিশ্বাসযোগ্য সিটি করপোরেশন নির্বাচন আয়োজনের আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি-মুন।

বাংলাদেশে একটি স্বচ্ছ, অংশগ্রহণমূলক ও বিশ্বাসযোগ্য সিটি করপোরেশন নির্বাচন আয়োজনের আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি-মুন। বাংলাদেশে একটি স্বচ্ছ, অংশগ্রহণমূলক ও বিশ্বাসযোগ্য সিটি করপোরেশন নির্বাচন আয়োজনের আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি-মুন। আর নির্বাচনী প্রচারণার নির্বিঘ্নে ও নিরাপদ পরিবেশেই একমাত্র এ ধরনের নির্বাচন আয়োজন সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

জাতিসংঘের নিয়মিত সংবাদ-সম্মেলনে বুধবার মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজাররিক গত কয়েকদিন বাংলাদেশ ইস্যুতে করা প্রশ্নে জাতিসংঘের অবস্থান তুলে ধরতে গিয়ে একথা বলেন।

বুধবার চতুর্থ দিনের মত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ওপর সরকারি দলের নেতাকর্মীদের বেপরোয়া হামলার পর জাতিসংঘ এ আহ্বান জানাল।

কয়েক দিন ধরেই এই ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চেয়ে প্রশ্ন করছিলেন সাংবাদিকরা। বুধবার তার জবাব দেন ডুজারিক।

তিনি বলেন, ‘গত কয়েক দিনে আমাকে একাধিকবার বাংলাদেশ এবং বিএনপি নেতা খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলাগুলোর বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়েছে। আমরা জানতে পেরেছি যে, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। জাতিসংঘের মহাসচিব একটি স্বচ্ছ, অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য তার আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেছেন। আর সেটা কেবল নির্বাচনী প্রচারের জন্য নিঃশঙ্ক ও নিরাপদ পরিবেশেই সম্ভব।’

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়েও গতকাল বাংলাদেশ প্রসঙ্গে সামান্য আলোচনা হয়েছে। দপ্তরের মুখপাত্র মেরি হার্ফের কাছে এক সাংবাদিক জানতে চান, ‘নির্বাচনী সহিংসতা ও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার বিষয়ে গতকালই (মঙ্গলবার) আপনারা একটি বিবৃতি দিয়েছেন। কিন্তু এখন থেকে ছয়-সাত ঘণ্টা আগেই সরকারপন্থী কর্মীরা আবারো হামলা চালিয়েছে। তারা দুটি গাড়ি ভাঙচুর করে এবং তার (খালেদা জিয়ার) দুজন ব্যক্তিগত নিরাপত্তারক্ষীকে মারধর করে। তো, এ বিষয়ে আপনার বর্তমান পর্যবেক্ষণ কী?’

জবাবে মেরি হার্ফ বলেন, ‘আমরা গতকাল (মঙ্গলবার) যে প্রতিক্রিয়া দিয়েছি, এ ক্ষেত্রেও তা-ই পুনর্ব্যক্ত করছি।’

মঙ্গলবার বাংলাদেশে নির্বাচনী প্রচারে চালানো সহিংসতার ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ করে মেরি হার্ফ বলেছিলেন, ‘নির্বাচনী প্রচার চলাকালে স্বাধীনভাবে মত প্রকাশ ও সমাবেশ করতে দেওয়ার জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এবং যারা আইন অমান্য করে, তাদের বিচারের আওতায় আনারও আহ্বান জানাই আমরা।’

এর আগে সোমবার বাংলাদেশের মার্কিন দূতাবাসও এক বিবৃতিতে একই মত প্রকাশ করে বিবৃতি দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *