বাংলাদেশ-ভারত কূটনীতিকদের সম্মেলনে বক্তারা বলেছেন, দুই দেশের সার্বিক সম্পর্ক উন্নয়নে আগে আস্থা ও বিশ্বাসের সঙ্কট দূর করতে হবে।
জাতীয়

‘আস্থা ও বিশ্বাসের সঙ্কট দূর করতে হবে’

বাংলাদেশ-ভারত কূটনীতিকদের সম্মেলনে বক্তারা বলেছেন, দুই দেশের সার্বিক সম্পর্ক উন্নয়নে আগে আস্থা ও বিশ্বাসের সঙ্কট দূর করতে হবে।বাংলাদেশ-ভারত কূটনীতিকদের সম্মেলনে বক্তারা বলেছেন, দুই দেশের সার্বিক সম্পর্ক উন্নয়নে আগে আস্থা ও বিশ্বাসের সঙ্কট দূর করতে হবে। এজন্য এমন চুক্তি ও সমঝোতা করতে হবে যার মাধ্যমে অনেক সমস্যা এমনিতেই সমাধান হয়ে যায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের উদ্যোগে এবং ভারত-বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় বাংলাদেশ ও ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রদূতদের দুই দিনব্যাপী সম্মেলন শুরু হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে এ সম্মেলন শুরু হয়। শেষ হবে আগামীকাল শনিবার। দুই দেশের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো সম্প্রসারিত করতেই এ সম্মেলনের আয়োজন।

তিন পর্বের এ সম্মেলনে ভারত এবং বাংলাদেশে নিজ নিজ দেশের হয়ে দায়িত্ব পালন করা সাবেক কূটনীতিকরা অংশ নেন।

ভারতীয় প্রবীণ কূটনীতিক মুুসকন্দ দুবে বলেন, আস্থা এবং বিশ্বাসের বিষয় কূটনীতিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ ভারতের নিরাপত্তার বিষয়ে খুবই সচেতন। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ একটি আস্থার সম্পর্ক তৈরি করেছিল। কিন্তু ভারত এ সুযোগটি কাজে লাগাতে পারেনি।

তিনি বলেন, দুই দেশের মধ্যে এমন চুক্তি থাকা দরকার যাতে এর আওতায় সমস্যাগুলোর সমাধান করা যায়।

কূটনীতিক ফারুক আহমেদ চৌধুরী বলেন, দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক সরকার টু সরকার থাকা উচিত না। সম্পর্ক হতে হবে সব পক্ষের সঙ্গে।

কূটনীতিক ফারুক সোবহান বলেন, দুই দেশের সম্পর্কের বাস্তবতাটি অনুধাবন করতে হবে সবার আগে। এই বাস্তবতার প্রতি শ্রদ্ধাবোধ থাকতে হবে উভয় পক্ষের।

তিনি বলেন, মোদি সরকার দায়িত্ব নেয়ার পর অনেক ইতিবাচক পদক্ষেপ নিয়েছে। সামনে তা আরও দূর এগিয়ে যাবে। প্রতি বছরই দুই দেশের শীর্ষ পর্যায়ে আলোচনার পরামর্শ দেন অভিজ্ঞ এ কূটনীতিক।

সম্মেলনে অংশ নেয়া ভারতীয় সাবেক হাইকমিশনাররা হলেন- মাচকুন্দ দুবে (অক্টোবর ১৯৭৯- অক্টোবর ১৯৮২), আইএস চাধা (অক্টোবর ১৯৮৫- ফেব্রুয়ারি ১৯৮৯), দেব মুখার্জি (মার্চ ১৯৯৫- জুলাই ২০০০), বীণা সিক্রি (ডিসেম্বর ২০০৩- নভেম্বর ২০০৬), পিনাক রঞ্জন চক্রবর্তী (জানুয়ারি ২০০৭- ডিসেম্বর ২০০৯) এবং রাজিত মিত্র (ডিসেম্বর ২০০৯- অক্টোবর ২০১১)।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, অধ্যাপক আশেকুয়া ইরশাদ, এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাবে অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ এই প্রথমবারের মতো ঢাকায় আয়োজিত এ ধরনের একটি সম্মেলনে দুই দেশের প্রাক্তন কূটনৈতিকরা বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গি এবং পারস্পরিক অভিজ্ঞতা তুলে ধরবেন বলে আয়োজক সূত্রে জানা গেছে।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *