এই গ্রীষ্মেই ১৯০টি দেশ পেতে যাচ্ছে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের সবশেষ ভার্সন উইন্ডোজ ১০।
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

১৯০ দেশে আসছে উইন্ডোজ ১০

এই গ্রীষ্মেই ১৯০টি দেশ পেতে যাচ্ছে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের সবশেষ ভার্সন উইন্ডোজ ১০। এই গ্রীষ্মেই ১৯০টি দেশ পেতে যাচ্ছে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের সবশেষ ভার্সন উইন্ডোজ ১০।

চীনের সেনজেনে মঙ্গলবার উইন্ডোজ হার্ডওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং কমিউনিটি সামিটে উইন্ডোজ প্রধান টেরি মায়ারসন তথ্যটি জানান। বক্তব্যে তিনি বলেন, প্রতিনিয়ত উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের সেরা কিছু দিতে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। আর যেটা আজ সবার সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিচ্ছি।

মাইক্রোসফটের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট টেরি মিয়েরসন জানান, সফটওয়্যার পাইরেসি ঠেকাতে চীনের ৩টি বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সাথে মিলে কাজ করবেন তাঁরা। লেনোভো, টেনসেন্ট এবং কিউইহু থ্রি সিক্সটি। এসব প্রতিষ্ঠান তাদের ক্রেতাদের বিনা মূল্যে উইন্ডোজ টেন আপগ্রেড করে দেবে।

একইসাথে স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জায়োমির সাথেও কাজ করবে মাইক্রোসফট। অ্যানড্রয়েড অপারেটিংয়ের সেট তৈরি করলেও ক্রেতাদের পরীক্ষামূলকভাবে স্মার্টফোনে ‘উইন্ডোজ ১০’ ব্যবহার করার সুযোগ দেবে জায়োমি।

মেয়ারসন এক ব্লগেও উইন্ডোজ ১০র বিষয়ে বলেন ১৯০টি দেশে ১১১টি ভাষায় পাওয়া যাবে এটি। পৃথিবীজুড়ে উইন্ডোজের ব্যবহারকারী ১.৫ বিলিয়নের বেশি আর চীনে বর্তমানে শত শত মিলিয়ন পিসিতে ব্যবহার হচ্ছে উইন্ডোজ। যদিও উন্মুক্তের সুনির্দিষ্ট কোনো দিনক্ষণ প্রকাশ করা হয়নি। তবে গ্রীষ্মেই পরবর্তী প্রজন্মের সম্পূর্ণ নতুন পদ্ধতির এই পণ্যটি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করতে মাইক্রোসফট বদ্ধ পরিকর। নতুন এই ওএসএ থাকবে নতুন বায়োমেট্রিক লগইন সিস্টেম যাকে উইন্ডোজ হ্যালো নাম দেয়া হয়েছে।

পাসওয়ার্ডের স্থলে এটি থাকবে। অনুষ্ঠানে মেয়ারসন চমকপ্রদ এই ফিচারের কার্যবিধিও উপস্থাপন করেন। এটি একটি আইডেন্টিটি অথেনটিকেশন প্রসেস যেটা পণ্যের মালিকের ফেস, ফিঙ্গারপ্রিন্ট এর মাধ্যমে ব্যবহৃত হয় ফলে ব্যবহারকারী পণ্যগুলো খুলতে সক্ষম হবে। অন্যান্য তথ্য মতে, পণ্যটি নিয়ে মাইক্রোসফটের সুবিশাল এক লক্ষ্য রয়েছে। এ মুহূর্তে যারা উইন্ডোজ ৭ বা ৮.১ ব্যবহার করছেন তারা নতুন ভার্সন বা উইন্ডোজ ১০র ফ্রি একটা আপগ্রেড পাবেন।

টেক রিসার্চ ফার্ম ফরেস্টারের মতে, দুই বছর আগে বাজারে ছাড়া উইন্ডোজ ৮ মাত্র ২০ শতাংশ মানুষ ব্যবহার করে।

এটির জন্য নতুনভাবে ওয়াইফাই সিলেকশন উইন্ডো খোলা হয়েছে। যাতে করে খুব সহজেই ওয়াই-ফাই সিগন্যাল সনাক্ত করে কানেকশন পাওয়া যাবে। যদিও আগের ভার্সনেও ওয়াই-ফাই ট্যাব রাখা হয়েছিল। কিন্তু সেটি খুব একটা সহজতর প্রক্রিয়া ছিল না। তাই ব্যবহাকারীদের সুবিধার্থে ওয়াই-ফাই সিগন্যাল ট্যাব মডিফাই করলো মাইক্রোসফট।

মাইক্রোসফটের কর্মকর্তারা বলেছেন, উইন্ডোজ ৮ থেকে সরাসরি উইন্ডোজ ১০ এ চলে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে এটাই বোঝানো হয়েছে যে এটি একটি বড় পদক্ষেপ।

বর্তমানে বিশ্বে ১.৫ মিলিয়নরেও বেশি গ্রাহকরা উইন্ডোজ ব্যবহার করে থাকেন। তবে উইন্ডোজ ৮ অপারেটিং সিস্টেমটি আশানুরূপ জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি। উইন্ডোজ ১০ এর উদ্দেশ্য হচ্ছে লাভজনক ব্যবসার বাজার পুর্নদখলে নেয়া।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *