আল্লাহর ৯৯টি নাম

আল্লাহর ৯৯টি নাম

13
0
SHARE

আল্লাহর ৯৯টি নামমহান প্রভুর সর্বশ্রেষ্ঠ নাম ‘আল্লাহ’। তাঁর আরও ৯৮টি গুণবাচক নাম রয়েছে। যে কোনো গুণবাচক নাম দিয়েই আল্লাহর কথা বলা হোক না কেন, সব নাম দ্বারা আল্লাহকেই ইঙ্গিত করা হয়। আল্লাহ্ তায়ালা বলেন, ‘তিনিই আল্লাহ্, যিনি ছাড়া আর কোনো প্রভু নেই। দৃশ্যমান এবং অদৃশ্যমান জগতের সব ব্যাপারে যিনি সম্যক অবগত। তিনি সবচাইতে দয়ালু, সবচাইতে ক্ষমাশীল। তিনিই আল্লাহ্, যিনি সবকিছুর অধিপতি, পুতঃপবিত্র, সবকিছুর ঊর্ধ্বে, নিরাপত্তা প্রদানকারী, অভিভাবক, সর্বশক্তিমান, সমুচ্চ, গৌরবান্বিত, সকল প্রশংসা তাঁর জন্য, তারা তাঁর সাথে যা কিছু শরিক করে সেগুলা থেকে তিনি অনেক ঊর্ধ্বে। তিনি আল্লাহ্, যিনি শূন্য থেকে সৃষ্টি শুরু করেছেন, সবকিছু তৈরি করেছেন, আকৃতি দিয়েছেন। সবচাইতে ভালো নামগুলো তাঁর জন্যই প্রযোজ্য। মহাকাশ এবং পৃথিবীর মধ্যে যা কিছু আছে সবকিছু তাঁর মহত্ত্ব বর্ণনা করে, এবং তিনিই সর্বশক্তিমান, সর্বজ্ঞ।’

আল্লাহর ৯৯টি নাম অর্থসহ তুলে ধরা হলো।

১. الله (আল্লাহ)। অর্থ : আল্লাহ, প্রভু।

২. الرَّحْمَنُ (আর-রহমান)। অর্থ : সবচাইতে দয়ালু, কল্যাণময়, করুণাময়।

৩. الرَّحِيمُ (আর-রহিম)। অর্থ : সবচাইতে ক্ষমাশীল।

৪. الْمَلِكُ (আল-মালিক)। অর্থ : অধিপতি।

৫. الْقُدُّوسُ (আল-ক্বুদ্দুস)। অর্থ : পূতপবিত্র, নিখুঁত।

৬. السَّلَامُ (আস-সালাম)। অর্থ : শান্তি এবং নিরাপত্তার উৎস, ত্রাণকর্তা।

৭. الْمُؤْمِنُ (আল-মুমিন)। অর্থ : জামিনদার, সত্য ঘোষণাকারী।

৮. الْمُهَيْمِنُ (আল-মুহাইমিন)। অর্থ : অভিভাবক, প্রতিপালক।

৯. الْعَزِيزُ (আল-আযিয)। অর্থ : সর্বশক্তিমান, সবচেয়ে সম্মানিত।

১০. الْجَبَّارُ (আল-জাব্বার)। অর্থ : দুর্নিবার, সমুচ্চ, মহিমান্বিত।

১১. الْخَالِقُ (আল-খলিক)। অর্থ : সৃষ্টিকর্তা।

১২. الْبَارِئُ (আল-বারি)। অর্থ : বিবর্ধনকারী, নির্মাণকর্তা, পরিকল্পনাকারী।

১৩. الْمُصَوِّرُ (আল-মুসাউয়ির)। অর্থ : আকৃতিদানকারী।

১৪. الْغَفَّارُ (আল-গাফফার)। অর্থ: পুনঃমার্জনাকারী।

১৫. الْقَهَّارُ (আল-কাহ্হার)। অর্থ : দমনকারী।

১৬. الْوَهَّابُ (আল-ওয়াহ্হাব)। অর্থ : সবকিছু দানকারী।

১৭. الرَّزَّاقُ (আর-রজ্জাক।। অর্থ : রিজিকদাতা।

১৮. الْفَتَّاحُ (আল-ফাত্তাহ)। অর্থ : প্রারম্ভকারী, বিজয়দানকারী।

১৯. الْعَلِيمُ (আল-আলীম)। অর্থ : সর্বজ্ঞানী, সর্বদর্শী।

২০. الْقَابِضُ (আল-কাবিদ)। অর্থ : নিয়ন্ত্রণকারী, সরলপথ প্রদর্শনকারী।

২১. الْبَاسِطُ (আল-বাসিত)। অর্থ : প্রসারণকারী।

২২. الْخَافِضُ (আল-খাফিদ)। অর্থ : (অবিশ্বাসীদের) অপমানকারী।

২৩. الرَّافِعُ (আর-রাফি)। অর্থ : উন্নীতকারী।

২৪. الْمُعِزُّ (আল-মুয়িজ্জিব)। অর্থ : সম্মানপ্রদানকারী।

২৫. الْمُذِلُّ (আল-মুঝিল্ল)। অর্থ : সম্মানহরণকারী।

২৬. السَّمِيعُ (আস-সামীয়ু)। অর্থ : সর্বশ্রোতা।

২৭. الْبَصِيرُ (আল-বাসির)। অর্থ : সর্বদ্রষ্টা।

২৮. الْحَكَمُ (আল-হাকাম)। অর্থ : বিচারপতি।

২৯. الْعَدْلُ (আল-আদল)। অর্থ : নিখুঁত।

৩০. اللَّطِيفُ (আল-লাতিফ)। অর্থ : অমায়িক।

৩১. الْخَبِيرُ (আল-খবির)। অর্থ : সম্যক অবগত।

৩২. الْحَلِيمُ (আল-হালিম)। অর্থ : ধৈর্যবান, প্রশ্রয়দাতা।

৩৩. الْعَظِيمُ (আল-আযিম)। অর্থ : সুমহান।

৩৪. الْغَفُورُ (আল-গফুর)। অর্থ : মার্জনাকারী।

৩৫. الشَّكُورُ (আশ-শাকুর)। অর্থ : সুবিবেচক।

৩৬. الْعَلِيُّ (আল-আলিই)। অর্থ : মহীয়ান।

৩৭. الْكَبِيرُ (আল-কাবীর)। অর্থ : সুমহান।

৩৮. الْحَفِيظُ (আল-হাফিজ)। অর্থ : সংরক্ষণকারী।

৩৯. الْمُقِيتُ (আল-মুকিত)। অর্থ : লালনপালনকারী।

৪০. الْحَسِيبُ (আল-হাসিব)। অর্থ : মীমাংসাকারী।

৪১. الْجَلِيلُ (আল-জালিল)। অর্থ : গৌরবান্বিত।

৪২. الْكَرِيمُ (আল-কারিম)। অর্থ : উদার, অকৃপণ।

৪৩. الرَّقِيبُ (আর-রকিব)। অর্থ : সদা জাগ্রত, অতন্দ্র পর্যবেক্ষণকারী।

৪৪. الْمُجِيبُ (আল-মুজীব)। অর্থ : সাড়া দানকারী, উত্তরদাতা।

৪৫. الْوَاسِعُ (আল-ওয়াসি)। অর্থ : অসীম, সর্বত্র বিরাজমান।

৪৬. الْحَكِيمُ (আল-হাকিম)। অর্থ : সুবিজ্ঞ, সুদক্ষ।

৪৭. الْوَدُودُ (আল-ওয়াদুদ)। অর্থ : স্নেহশীল।

৪৮. الْمَجِيدُ (আল-মাজিদ)। অর্থ : মহিমান্বিত।

৪৯. الْبَاعِثُ (আল-বাঈস)। অর্থ : পুনরুত্থানকারী।

৫০. الشَّهِيدُ (আশ-শাহীদ)। অর্থ : সাক্ষ্যদানকারী।

৫১. الْحَقُّ (আল-হক)। অর্থ : প্রকৃত সত্য।

৫২. الْوَكِيلُ (আল-ওয়াকিল)। অর্থ : সহায় প্রদানকারী, আস্থাভাজন, উকিল।

৫৩. الْقَوِيُّ (আল-কুওয়াত)। অর্থ : ক্ষমতাশালী।

৫৪. الْمَتِينُ (আল মাতীন। অর্থ : দৃঢ়তাসম্পন্ন।

৫৫. الْوَلِيُّ (আল-ওয়ালিই)। অর্থ : বন্ধু, সাহায্যকারী, শুভাকাক্সক্ষী।

৫৬. الْحَمِيدُ (আল-হামিদ)। অর্থ : সকল প্রশংসার দাবীদার, প্রশংসনীয়।

৫৭. الْمُحْصِي (আল-মুহসি)। অর্থ : বর্ণনাকারী, গণনাকারী।

৫৮. الْمُبْدِئُ (আল-মুব্দি)। অর্থ : অগ্রণী, প্রথম প্রবর্তক, সৃজনকর্তা।

৫৯. الْمُعِيدُ (আল-মুঈদ)। অর্থ : পুন:প্রতিষ্ঠাকারী, পুনরূদ্ধারকারি।

৬০. الْمُحْيِي (আল-মুহিই)। অর্থ : জীবনদানকারী।

৬১. الْمُمِيتُ (আল-মুমীত)। অর্থ : ধ্বংসকারী, মৃত্যু আনয়নকারী।

৬২. الْحَيُّ (আল-হাইই)। অর্থ : চিরঞ্জীব, যার কোনো শেষ নাই।

৬৩. الْقَيُّومُ (আল-কাইয়ুম)। অর্থ : অভিভাবক, জীবিকানির্বাহ প্রদানকারী।

৬৪. الْوَاجِدُ (আল-ওয়াজিদ)। অর্থ : পর্যবেক্ষক, চিরস্থায়ী।

৬৫. الْمَاجِدُ (আল-মাজিদ)। অর্থ : সুপ্রসিদ্ধ।

৬৬. الْوَاحِدُ (আল-ওয়াহিদ) ।অর্থ : এক, অনন্য, অদ্বিতীয়।

৬৭. الصَّمَدُ (আস-সমাদ)। অর্থ : চিরন্তন, অবিনশ্বর, নির্বিকল্প, সুনিপুণ, স্বয়ং সম্পূর্ণ।

৬৮. الْقَادِرُ (আল-কাদির)। অর্থ : সর্বশক্তিমান।

৬৯. الْمُقْتَدِرُ (আল-মুকতাদির)। অর্থ : প্রভাবশালী, সিদ্ধান্তগ্রহণকারী।

৭০. الْمُقَدِّمُ (আল-মুকাদ্দিম)। অর্থ : অগ্রগতিতে সহায়তা প্রদানকারী।

৭১. الْمُؤَخِّرُ (আল-মুআক্ষির)। অর্থ : বিলম্বকারী।

৭২. الْأَوَّلُ (আল-আউয়াল)। অর্থ : সর্বপ্রথম, যার কোনো শুরু নাই।

৭৩ الْآخِرُ (আল-আখির)। অর্থ : সর্বশেষ, যার কোনো শেষ নাই।

৭৪. الظَّاهِرُ (আজ-জাহির)। অর্থ : সুস্পষ্ট, সুপ্রতীয়মান।

৭৫. الْبَاطِنُ (আল-বাতিন)। অর্থ : লুকায়িত, অস্পষ্ট, অন্তর (যা কিছু দেখা যায় না)।

৭৬. الْوَالِيَ (আল-ওয়ালি)। অর্থ : সুরক্ষাকারী বন্ধু, অনুগ্রহকারী, বন্ধুত্বপূর্ণ প্রভু।

৭৭. الْمُتَعَالِي (আল-মুতাআলী)। অর্থ : সর্বোচ্চ মহিমান্বিত, সুউচ্চ।

৭৮. الْبَرُّ (আল-র্বার)। অর্থ : কল্যাণকারী।

৭৯. التَّوَّابُ (আত-তাওয়াব)। অর্থ : বিনম্র, সর্বদা আবর্তিতমান।

৮০. الْمُنْتَقِمُ (আল-মুন্তাকিম)। অর্থ : প্রতিফল প্রদানকারী।

৮১. الْعَفُوُّ (আল-আফুউ)। অর্থ : শাস্তি মউকুফকারী, গুনাহ ক্ষমাকারী।

৮২. الرَّءُوفُ (আর-রওফ)। অর্থ : সদয়, সমবেদনা প্রকাশকারী।

৮৩. مَالِكُ الْمُلْكِ (মালিকুল মুলক)। অর্থ : সার্বভৌম ক্ষমতার অধিকারী।

৮৪. ذُو الْجَلَالِ وَالْإِكْرَامِ (জুল-জালালি ওয়াল ইকরাম)। অর্থ : মর্যাদা ও ঔদার্যের প্রভু।

৮৫. الْمُقْسِطُ (আল-মুকসিত)। ন্যায়পরায়ণ, প্রতিদানকারী।

৮৬. الْجَامِعُ (আল-জামি)। অর্থ : একত্র আনয়নকারী, ঐক্য সাধনকারী।

৮৭. الْغَنِيُّ (আল-গানিই)। অর্থ : ঐশ্বর্যবান, স্বতন্ত্র।

৮৮. الْمُغْنِي (আল-মুগনি)। অর্থ : সমৃদ্ধকারী, উদ্ধারকারী।

৮৯. الْمَانِعُ (আল-মানি)। অর্থ : প্রতিরোধকারী, রক্ষাকর্তা।

৯০. الضَّارُّ (আদ-র্দারু)। অর্থ : যন্ত্রণাদানকারী, উৎপীড়নকারী।

৯১. النَّافِعُ (আন-নাফি)। অর্থ : অনুগ্রাহক, উপকর্তা, হিতকারী।

৯২. النُّورُ (আন-নূর)। অর্থ : আলোক।

৯৩. الْهَادِي (আল-হাদী)। অর্থ : পথপ্রদর্শক।

৯৪. الْبَدِيعُ (আল-বাদী)। অর্থ : অতুলনীয়, অনিধগম্য।

৯৫. الْبَاقِي (আল-বাকী)। অর্থ : অপরিবর্তনীয়, অনন্ত, অসীম, অক্ষয়।

৯৬. الْوَارِثُ (আল-ওয়ারিস)। অর্থ : সবকিছুর উত্তরাধিকারী।

৯৭. الرَّشِيدُ (আর-রশিদ)। অর্থ : সঠিক পথের নির্দেশক।

৯৮. الصَّبُورُ (আস-সবুর)। অর্থ : ধৈর্যশীল।

৯৯. الْمُتَكَبِّرُ (আল-মুতাকাব্বির)। অর্থ : সর্বশ্রেষ্ঠ, গৌরবান্বিত।

আল্লাহর ৯৯ নামের মধ্যে ১২টির ফজিলত-আসমায়ে হোসনার ফজিলত

আল্লাহর ৯৯ নামের মধ্যে ১২টির ফজিলত বর্ণনা করা হলো-

১. ইয়া-আল্লাহ
যে ব্যক্তি দৈনিক ১০০ বার আল্লাহর নামটি জিকির করবে, আল্লাহপাক তার ঈমান দৃঢ় করবে। পার্থিব কোন লোভ-লালসা বা ছলনা তার ঈমান নষ্ট করতে পারবে না।

২. ইয়া-রাহমানু
(হে অনুগ্রহকারী ও করুণাময়) প্রতিদিন নিয়মিতভাবে এ গুণবাচক নামটি ১১১১ বার যিকির করলে ইনশাআল্লাহ্ পাঠকের প্রতি সকলেই সহানুভূতিশীল থাকবে।

৩. ইয়া-রাহীমু
(হেদয়াময় ও পরম দয়ালু) প্রতিদিন নিয়মিতভাবে এ গুণবাচক নামটি ১১১ বার পাঠ করলে পাঠকের মন ইনশাআল্লাহ্ বিনয়ী ও নম্র হবে।

৪. ইয়া-মালিকু
(হে মালিক প্রভূ) যে ব্যক্তি ফজরের নামাজের পর প্রত্যহ ১০০ বার ‘ইয়া-মালিক’ বলবে আল্লাহতালা তাকে ধনী করে দিবেন।

৫. ইয়া-কুদ্দুসু
(হে পবিত্রতম) যে ব্যক্তি প্রত্যহ সূযাস্তের সময় এই নামটি ১০০ পাঠ করবে আল্লাহ তার মনের বিদ্বেষ দূর করে দিবেন।

৬. ইয়া-সালামু
(হে শান্তি দান কারী) যে ব্যাক্তি এই নামটি “ইয়া-সালামু” বেশি বেশি পাঠ করবেন আল্লাহ তার সকল প্রকার বালা মুসিবত থেকে বাঁচিয়ে রাখবেন।

৭. ইয়া-মু’মিনু
(হে পরম বিশ্বাসী) প্রতিদিন নিয়মিত ভাবেএ পবিত্র নামটি অধিক পরিমানে পাঠকারী ব্যক্তি শয়তানের ধোঁকা থেকে মুক্তি লাভ করবে।

৮. ইয়া-মুহাইমিনু
(হে রক্ষাকর্তা ও পরম সাহসী) যে ব্যক্তি গোসল করে দুই রাকাত নামাজ পড়ে খাস দিলে ১০০ বার “ইয়া-মুহাইমিনু” এই নামটি পড়বে আল্লাহ তালা তার মনের ভিতর থেকে সকল প্রকার ভয় দূর করে দিবেন। মনে সাহস বৃদ্ধি পাবে।

৯. ইয়া-আযীযু
(হে পরাক্রমশালী) যে ব্যক্তি ৪০ দিন পর্যন্ত একাধারে ৭৫ বার “ইয়া-আযিযু” পড়বে আল্লাহপাক তাকে সম্মানিত ও অমুখাপেক্ষী করে দিবেন।

১০. ইয়া-জব্বারু
(হে অসীম ক্ষমতাশালী) কেউ যদি উক্তি নামটি হাতের আংটির পাথরে খোদাই করে ব্যবহার করে, তবে সে যেখানেই গমন করুক না কে লোকে তাকে সম্মান করবে।

১১. ইয়া-মুতাকাব্বিরু
(হে মহা গৌরবান্বিত) নিয়মিত ভাবে এ পবিত্র গুণবাচক নামটি ৬৯৫ বার পাঠ করলে পাঠকের মানসম্মান ও ব্যক্তিত্ব বৃদ্ধি পাবে।

১২. ইয়া-খলিক্কু
(হে সৃজনকারী বা সৃষ্টিকর্তা) যে ব্যক্তি একাধারে ৭ দিন পর্যন্ত এই নামটি সদা সর্বদা জিকির করিবে, আল্লাহ তালা তাকে বিপদ-আপদ থেকে মুক্ত রাখবেন।

Comments

comments