অলরাউন্ড সাব্বিরে বাংলাদেশের টানা দ্বিতীয় জয়
খেলা

অলরাউন্ড সাব্বিরে বাংলাদেশের টানা দ্বিতীয় জয়

অলরাউন্ড সাব্বিরে বাংলাদেশের টানা দ্বিতীয় জয়রোববার ওয়ালটন টি-২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও জিম্বাবুয়েকে ৪২ রানে হারিয়েছে মাশরাফি দল। এই জয়ে চার ম্যাচের সিরিজে ২-০ তে এগিয়ে গেল টাইগাররা।

প্রথমে ব্যাট করে ৩ উইকেটে ১৬৭ রান করে বাংলাদেশ। জবাবে ৮ উইকেটে ১২৫ রান করতে সমর্থ হয় জিম্বাবুয়ে। অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে বাংলাদেশের জয়ের নায়ক সাব্বির রহমান ম্যাচ সেরা হন।

১৬৮ রানের টার্গেটে জিম্বাবুয়ের সূচনা ভালোই ছিল। ৬ ওভারে বিনা উইকেটে ৪৫ রান ‍তুলেছিল দলটি। তবে তারপরেই ছন্দ পতন হয়েছে জিম্বাবুয়ের। ক্রমাগত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে হ্যামিল্টন মাসাকাদজার দল। ৬৮ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা।

জিম্বাবুয়ের ওপেনিং জুটি ভেঙেছেন মাশরাফি। সপ্তম ওভারে প্লেড অন হয়ে বোল্ড হয়েছেন ভুসিমুজি সিবান্দা (২১)। সাব্বিরকে ছক্কা মারতে গিয়ে বাউন্ডারি লাইনে ধরা পড়েন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। ২৮ বলে ৩০ রান করেন তিনি। শুভাগতর বলে এলবির ফাঁদে পড়েন শন উইলিয়ামস (৭)। সাব্বিরের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে মুতুম্বামি ৭ রান করেছেন।

ওয়ালার-পিটার মুর পঞ্চম উইকেটে ৩৭ রান যোগ করেন। ওয়ালারকে ফিরিয়ে ব্রেক থ্রু এনে দেন আল-আমিন। লো ফুলটসের বিপরীতে বড় শট খেলতে গিয়ে দলীয় ১০৫ রানে সৌম্যর হাতে ক্যাচ দেন ওয়ালার। তিনি ২৯ রান করেন। ১৭তম ওভারে জোড়া আঘাত হানেন মুস্তাফিজ। তৃতীয় ও ষষ্ঠ বলে তার মারণঘাতী ইয়র্ককারে পিটার মুর (৯), মাডজিভার (০) স্ট্যাম্প ছত্রখান হয়। তবে ইনিংসের শেষ ওভারের পঞ্চম বল করতে গিয়ে ব্যথা অনুভব করেন মুস্তাফিজ। সাব্বিরের করা শেষ বলে ক্রেমার কট এন্ড বোল্ড হন। বাংলাদেশের সাব্বির ১১ রানে ৩ উইকেট নেন। মুস্তাফিজ ২টি, মাশরাফি, শুভাগত, আল-আমিন ১টি করে উইকেট পান।

প্রথম ম্যাচেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামেরে উইকেটের সঙ্গে রানের সখ্যতা আছে। টস জিতে তাই দ্বিধাহীন চিত্তেই ব্যাটিং নিয়েছিলেন মাশরাফি। তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকারের ওপেনিং জুটি উইকেট, বলের মান বিচারেই ব্যাটিং শুরু করেছিল। ৪৫ রানে বিচ্ছিন্ন হয় তাদের জুটি। মুজারাবানির করা ষষ্ঠ ওভারের পঞ্চম বলটা ছিল অফ কাটার। সুইপ খেলতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে ক্যাচ দেন তামিম ২৩ রান করে।

সহজাত ব্যাটিংয়ে জিম্বাবুয়েকে চাপে রাখার কাজটা করে গেছেন সৌম্য। টি-২০ তে ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলে হাফ সেঞ্চুরির পথেই হাঁটছিলেন। ক্ষনিকের বালখিল্যতায় আক্ষেপ নিয়েই ফিরতে হয় বাঁহাতি এ ওপেনারকে। দলীয় ৭৫ রানে ক্রেমারের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেটে ক্যাচ দেন সৌম্য। ১ রানের ব্যবধানে নিজের প্রথম বলেই বোল্ড হন মাহমুদউল্লাহ (০)। ৩৩ বলে ৪৩ রান (৪ চার, ৩ ছয়) করেন সৌম্য।

দ্রুত ২ উইকেটে হারিয়ে বসা বাংলাদেশকে দুর্ভাবনায় পড়তে হয়নি ইনফর্ম সাব্বির রহমান ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটিং দৃঢ়তায়। ৫.৫ ওভারেই তারা ৫৫ রান যোগ করেন। এ জুটির ব্যাটিং ঝলক আরও দীর্ঘায়িত হতে পারতো। ডান পায়ে হ্যামিস্ট্রিংয়ের টান পড়ায় ২৪ রান করে অবসরে যেতে বাধ্য হয়েছেন মুশফিক।

শেষ চার ওভারে সাব্বির-সাকিবের যুগলবন্দি পরিস্থিতির দাবি মিটিয়ে রান তুলতে সমর্থ হয়নি। তারা ৩৯ রান তুলেছেন। সাকিব ১৭ বলে অপরাজিত ২৭ রান করেছেন। সাব্বির ৩০ বলে অপরাজিত ৪৩ রান (১ চার, ৩ ছয়) করেন। জিম্বাবুয়ের পক্ষে মুজারাবানি, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ও ক্রেমার ১টি করে উইকেট নেন।

বিশ্রামে মুস্তাফিজ, ইনজুরিতে মুশফিকুর

ওয়ালটন টি-২০ সিরিজের তৃতীয় ও চতুর্থ ম্যাচের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। সেই দলে পরিবর্তন আছে তিনটি।

বিশ্রাম দেয়া হয়েছে বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমানকে। পেসার আল-আমিন হোসেন, অলরাউন্ডার শুভাগত হোমও আছেন সে তালিকায়। তাদের বদলে দলে অন্তর্ভুক্ত হলেন পেসার মোহাম্মদ শহীদ, ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও অলরাউন্ডার মুক্তার আলী।

রোববার ম্যাচের শেষ ওভারের পঞ্চম বলটা করতে গিয়ে বাঁ হাতে টান পড়ে মুস্তাফিজের। ওভারের ষষ্ঠ বলটা তাই সাব্বিরকেই করতে হয়েছিল। অনেক দুশ্চিন্তার বিষয় হয়তো নয়, তবে দল সূত্রের খবর মুস্তাফিজ জোরে কাটার করতে গেলে হাতে একটু ব্যথা পান। যা তিনি পেয়েছিলেন গত বিসিএলে খেলতে গিয়ে। অবশ্য এ ব্যথা পাওয়ার আগেই টিম ম্যানেজমেন্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সিরিজের পরের দুই ম্যাচে খেলানো হবে না তরুণ এ পেসারকে। তৃতীয় ও চতুর্থ ম্যাচে তাই বিশ্রামে থাকবেন মুস্তাফিজ।

এদিকে ব্যাটিংয়ের সময় হ্যামস্ট্রিংয়ে টান পড়েছিল মুশফিকুর রহিমের। সেটিও খুব গুরুতর নয়।

জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ২০ ও ২২ জানুযারি সিরিজের তৃতীয়, চতুর্থ ম্যাচটি খেলবে বাংলাদেশ। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ম্যাচগুলো শুরু হবে বেলা তিনটায়।

তৃতীয় ও চতুর্থ টি-২০ ম্যাচের বাংলাদেশ দল
মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহঅধিনায়ক), তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আরাফাত সানি, নুরুল হাসান, মোহাম্মদ শহীদ, আবু হায়দার রনি, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও মুক্তার আলী।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *