মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে রক্তক্ষরণ হয়ে ব্লগার অভিজিৎ রায়ের মুত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সোহেল মাহমুদ।
জাতীয়

অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে অভিজিতের মৃত্যু

মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে রক্তক্ষরণ হয়ে ব্লগার অভিজিৎ রায়ের মুত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সোহেল মাহমুদ।মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে রক্তক্ষরণ হয়ে ব্লগার অভিজিৎ রায়ের মুত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সোহেল মাহমুদ।

ঘাতকদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাথার চামড়া ও হাড় ভেদ করে মগজ পর্যন্ত কেটে যাওয়ায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন তৈরিকারী চিকিৎসক ।

শাহবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুব্রত গোলদার শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন। এরপর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাসুম বেলা পৌনে ১টা থেকে সোয়া ১টা পর্যন্ত ময়নাতদন্ত করেন।

এসআই সুব্রত সুরতহাল রিপোর্টে উল্লেখ করেছেন- অভিজিৎ রায়ের মাথায় (ঘাড়ের উপরে) তিনটি গুরুতর জখম, অন্যপাশে আরও দুটি এবং পিঠে একটি জখমের চিহ্ন রয়েছে।

অন্যদিকে, ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করে ডা. সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, বিশেষ করে তার (অভিজিৎ) মাথায় যে তিনটি আঘাত হয়েছে, তাতে চামড়া ও হাড় ভেদ করে মগজ পর্যন্ত কেটে গেছে। এ ছাড়া শরীরে জখমের আরও কয়েকটি চিহ্ন আছে। ঘটনার পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে, এ হত্যার ঘটনায় মামলা করেছেন অভিজিৎ রায়ের বাবা শিক্ষাবিদ ড. অজয় রায়। অজ্ঞাতসংখ্যক আসামী করে শুক্রবার সকালে শাহবাগ থানায় তিনি এ মামলাটি দায়ের করেন।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম মামলার (মামলা নং-৫১) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বইমেলা থেকে ফেরার পথে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে টিএসসির সামনে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে লেখক দম্পতি অভিজিৎ রায় (৩৮) ও রাফিদা আহমেদ বন্যাকে (৩০)।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *